ফ্রিল্যান্সিং কি? ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব

ফ্রিল্যান্সিং কি? ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব: বর্তমান যুগে অনেক শিক্ষিত তরুন অনলাইনে ঘরে বসে আয় করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করছে। শুধু জীবিকা নির্বাহ করছে বললে ভুল হবে অনলাইন থেকে অনেক টাকা আয় করছে যা কোন অংশে সরকারী বা বেসরকারী চাকুরীর চেয়ে কম নয়। অনলাইন আয়ের অনেকগুলো মাধ্যম আছে তার মধ্যে অন্যতম হলো ফ্রিল্যান্সিং। বাংলাদেশসহ বিশ্বের হাজার হাজার মানুষ ফ্রিল্যান্সিং কে পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছে। তাই আজকে আমরা জানব ফ্রিল্যান্সিং কি? ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব সেই সম্পর্কে।

ফ্রিল্যান্সিং কি ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব
                                                                           ফ্রিল্যান্সিং কি ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব

ফ্রিল্যান্সিং কি

বর্তমান বিশ্বে তরুনদের আকর্ষনীয় পেশার নাম ফ্রিল্যান্সিং। ফ্রিল্যান্সিং হলো স্বাধীন বা মুক্ত পেশা। সাধারণভাবে ফ্রিল্যান্সিং বলতে আমরা বুঝি কোন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান এর নিকট দায়বদ্ধ না থেকে নিজের যোগ্যতা ও দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা।  ফ্রিল্যান্সিং স্বাধীন পেশা হওয়ায় এর জনপ্রিয়তা অনেক বেশি। বাংলাদেশের হাজার হাজার শিক্ষিত তরুন এই পেশার সাথে জড়িত। এই পেশার সাথে জড়িত ব্যক্তিরা প্রতি মাসে হাজার হাজার মার্কিন ডলার বৈদেশিক রেমিটেন্স হিসাবে এনে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধশালী করছে। নিজে নিজের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা ছাড়াও দেশের অর্থনীতিতে উল্লেখযোগ্য ভুমিকা পালন করছে। ফ্রিল্যান্সিং এ সারা বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয় যা ভবিষ্যতে আরও উন্নতি হওয়ার অবকাশ রয়েছে।

ফ্রিল্যান্সার কারা?

ফ্রিল্যান্সার সাধারণত তাদেরকে বলা হয় যে বা যারা ফ্রিল্যান্সিং কাজ করে  নিজের কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেছে এবং নিজের বাড়ীতে বসে অনলাইনের মাধ্যমে দেশ বা দেশের বাইরের বিভিন্ন ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের কাজ করে উপযুক্ত পারিশ্রমিক গ্রহন করে তাদের জীবিকা নির্বাহ করে তাদেরকে ফ্রিল্যান্সার বলে। বর্তমানে ফ্রিল্যান্সার এর সংখ্যা কত তার সুনির্দিষ্ট কোন সংখ্যা না থাকলেও কয়েক লক্ষ হতে পারে বলে ধারনা করা যায়। ফ্রিল্যান্সারদের মর্যাদা ও স্বীকৃতি প্রদানের জন্য বাংলাদেশের বর্তমান সরকার ফ্রিল্যান্সারদের আইডি কার্ডের প্রচলন করেছে। যা ব্যবহার করে ফ্রিল্যান্সাররা ব্যাংক লোন বা অন্যান্য রাষ্টীয় সুযোগ -সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব

ফ্রিল্যান্সিং এমন একটি পেশা যেখানে কাজ করতে হলে আপনার দক্ষতা ও যোগ্যতা থাকতে হবে। কারণ ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে ফ্রিল্যান্সারদের সারা বিশ্বের মানুষের সাথে প্রতিযোগিতা করে টিকে থাকতে হয়। তাই ফ্রিল্যান্সিং কে পেশা হিসাবে গ্রহন করতে হলে অবশ্যই অনেক বিষয় শিখতে হবে। এখন প্রশ্ন হলো ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব? ফ্রিল্যান্সিং আপনি দুইভাবে শিখতে পারবেন। প্রথমত বিনামূল্যে বা ফ্রিতে, দ্বিতীয়ত অনলাইন বা অফলাইনে কোন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রিমিয়াম কোর্স করার মাধ্যমে। বিনামূল্যে ফ্রিল্যান্সিং শেখার প্রধান উৎস হলো অনলাইন। অনলাইনের মাধ্যমে আপনি বিভিন্ন ওয়েবসাইট বা ইউটিউব চ্যানেলের এর মাধ্যমে শিখতে পারবেন।বিনামূল্যে ফিল্যান্সিং শিখতে হলে আপনাকে অনেক বেশি পরিশ্রমী ও ধর্য্যশীল হতে হবে। ধর্য্য ধরে নির্দিষ্ট পরিকল্পনার মাধ্যমে অনলাইন থেকে ৮০-৯০% ফ্রিল্যান্সিং শেখা হয়ে যাবে।বাকীটা কাজ করার সময় আস্তে আস্তে শেখা যাবে বলে আশা করা যায়। আর প্রিমিয়াম কোর্সের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শিখতে হলে দেশি বা বিদেশী কোন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হয়ে তাদের কোর্সের কারিকুলাম অনুযায়ী শিখতে পারবেন। তবে কতটুকে শিখতে পারবেন তা নির্ভর করবে আপনার শেখার আগ্রহ এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রদত্ত নির্দেশনা ফলো করার উপর। ফ্রি বা প্রিমিয়াম যে পদ্ধতিতেই ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চাই না কেন আপনার আগ্রহ ও ইচ্ছাশক্তির উপর নির্ভর করছে সবকিছু।

ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ সমূহ

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে কাজের ধরনের কোন শেষ নেই। হাজার হাজার প্রকারের কাজ রয়েছে ফাইবার, আপ ওয়ার্ক, ফ্রিল্যান্সার ডট কম এর মতো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোতে। এখানে আমি কিছু জনপ্রিয় কাজের ধরন উল্লেখ করছি । যেমনঃ গ্রাফিক্স ডিজাইন, ওয়েব ডিজাইন, অডিও ও ভিডিও এডিটিং, ডাটা এন্ট্রি, কন্টেন্ট রাইটিং, এসইও সার্ভিস, ডিজিটাল মার্কেটিং, সেলস এন্ড মার্কেটিং, এ্যাডমিন এন্ড কাস্টমার সাপোর্ট ইত্যাদি। এছাড়াও আরো হাজার হাজার কাজের ক্ষেত্র রয়েছে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসগুলোতে। আপনি যে কোন একটি কাজে দক্ষ হয়ে কাজ করতে পারবেন অনায়াসে। যদি ভালো ভাবে কাজ শিখতে পারেন অশা করা যায় কাজের কোন অভাব হবে না ।

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস

ফ্রিল্যান্সিং কাজ করার জন্য বিশ্বে অনেক বড় বড় ওয়েব সাইট রয়েছে যেখানে বায়াররা তাদের কাজ বা জব পোষ্ট করে আর ফ্রিল্যান্সার রা সেই কাজের উপর বিট করার মাধ্যমে কাজ করে থাকে। বিশ্বের বড় বড় ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো আপ ওয়ার্ক, ফাইবার, ফ্রিল্যান্সার ডট কম, পিপল পার আওয়ার, গুরু ডট কম, ৯৯ ডিজাইন ইত্যাদি। এই সকল মার্কেটপ্লেসগুলো বায়ার ও ফ্রিল্যান্সারদের মাঝে সেতু বন্ধন হিসাবে কাজ করে। মূলতঃ এই সকল মার্কেটপ্লেসগুলো বায়াররা যেন তাদের কাজ সঠিক ভাবে বুঝে পায় এবং ফ্রিল্যান্সাররা যেন তাদের প্রাপ্য পারিশ্রমিক বুঝে পায় তা নিশ্চিত করে। বিনিময়ে তারা কিছু নির্দিষ্ট পরিমান কমিশন গ্রহন করে। এই সকল মার্কেটপ্লেস গুলোতে কাজের অফুরন্ত সুযোগ রয়েছে তাই যে কোন একটি কাজ ভালো ভাবে শিখে অনলাইনে আয় করতে পারেন অনায়াসে।

পরিশেষে

উপরোক্ত আলোচনায় আমরা জানতে পারলাম ফ্রিল্যান্সিং কি? ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখব সেই সম্পর্কে। আশা করি এই পোষ্টের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং সম্পর্কে একটি ভালো ধারনা পেযেছেন। আর একটা কথা এখানে বলে রাখি ফ্রিল্যান্সিং আসলে সহজ কিছু না। এখানে প্রচন্ড প্রতিযোগিতার মাধ্যমে কাজ পেতে হয়। সারা বিশ্বের হাজার হাজার মানুষ ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলোতে বিট করে কাজ পাওয়ার জন্য। সেই সকল প্রতিযোগীদের মধ্য থেকে বায়ার কেন আপনাকে বেছে নিবে সেটা আপনাকে অনুধাবন করতে হবে এবং সেই পরিমান  দক্ষতা অর্জন করতে হবে যাতে বায়ার হাজার হাজার ফ্রিল্যান্সারদের মাঝ থেকে আপনাকেই বেছে নেয় এবং আপনাকেই কাজটি দেয়। আবেগ নয় বাস্তবতা অনুধাবন হোক আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ারের পথচলার পাথেয়। আজকে এই পর্যন্ত দেখা হবে আগামীতে অন্য কোন টপিক নিয়ে সেই পর্যন্ত ভালো থাকবেন।

আরও পডুন

Leave a Comment