[মার্কেটিং] Affilate Marketing থেকে টাকা আয় করার সহজ উপায় কি?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী?

 বিশ্বের সব ধরনের ব্যবসায়ীরাই চায়া তাদের ব্যাবসাকে আরাে এগিয়ে আরাে প্রসার করতে ইন্টারনেটের ব্যবসায়ীদেরও এর ব্যতিক্রম হতে দেখা যায় না। তবে ব্যবসাতাে আর এমনিতেই প্রসারিত হয় না। একে বিভিন্ন উপায়ে প্রসারিত করতে হয়। এই উপায় গুলাের মধ্যে এফিলিয়েট মার্কেটিং প্রধান। আমরা সকলেই জানি যে অনলাইনে অনেক ধরনের ফিজিক্যাল এবং ডিজিটাল প্রােডাক্ট কেনা বেচা হয়। এখন এই ইন্তাস্ট্রি গুলাে থেকে যদি আপনি আপনার রেফার এর মাধ্যমে কোন প্রােডাক্ট বিক্রি করতে পারেন তাহলে সেই কোম্পানি আপনাকে আপনার সেলের উপর একটা কমিশন দিবে।
Affilate Marketing থেকে টাকা আয় করার সহজ উপায় কি? অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং কী?  কেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন? কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন? মার্কেটিং এর জন্য কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে?

আবার মনে করুন আপনি একটি সাইটে রেজিস্ট্রেশন করেছেন। এখন আপনার রেফারেন্স ব্যবহার করে যদি অন্য কেই ঐ সাইটে রেজিষ্ট্রেশন করে এবং এর বিনিময়ে আপনি যদি কোনভাবে লাভবান হন তবে একে আ্যফিলিয়েট মার্কেটিং বলে। অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুধু রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমেই না আরাে অনেক উপায়ে আছে। যেমন- কোন পণ্য বা সেবা বিক্রির মাধ্যমে, জাউনলােডের মাধ্যমে ইত্যাদি। এফিলিয়েট মার্কেটিং আয়ের একটি স্যালো উস হতে পারে। মনােযােগ দিয়ে যদি আ্যফিলিয়েট মার্কেট করেন তাহলে এর মাধ্যমে আপনি প্রচুর অর্থ আয় করতে পারেন।

কেন অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করবেন?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর বড় একটা সুবিধা হল যে আপনি অ্যাকটি না থাকলেও আপনার ইনকাম বন্ধ থাকবে । আর তাছাড়া এখানে ইনকাম করার জন্য আপনাকে দিন এর পর দিন বিড় করে যেতে হবে না এবং আপনি ভাল ইংরেজী না জানলেও চলবে। এটা সম্পূর্ণ আপনার উপর নির্ভর করবে। এখানে আপনার ইনকাম এর কোন লিমিটেশন ও নেই। আপনি যত বেশি কাজ করবেন তত বেশি ইনকাম 

বিভিন্ন প্রকার অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

১। পণ্য বিক্রির মাধ্যমে:- কিছু কিছু ই-কমার্স সাইট আছে যারা শুধুমাত্র স্াফিলি भার্কেটিং-এর মাধ্যমেই তাদে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে । অন্যান্য অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং-এর চেয়ে এই পদ্ধতিতে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং সবচেয়ে লাভজনক। আপনি যদি কোন ই-কমার্স সাইটের কোন পণ্য বা সেবা বিক্রি করে দিতে পারেন তবে ঐ পণ্য বা সেবার বিক্রিত অর্থ থেকে কিছু অংশ আপনিও পাবেন। পণ্যের দামের উপর ভিত্যি করে আপনাকে অর্থ প্রদান করা হবে। অর্থাৰ্থ, দামি কোন জিনিস বিক্রি করতে পারলে আপনার লাও লেশি হবে।
২। রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমে:- ইন্টারনেটে হাজারাে ট রয়েছে যারা ইউজার রেজিস্ট্রেশন এর জন্য অর্থ প্রদান করে। অর্থাৎ আপনি সাইটে রেজিস্ট্রেশন করার পর আপনাকে একটি রেফারেল লিঙ্ক দেয়া হবে। ঐ লিঙ্টির মাধ্যমে যদি কোন ইউজার এ সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে তবে আপনি প্রতিটি ইউজার রেজিস্ট্রেশন এর জন্য নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পাবেন।
৩। ডাঊনলােড এর মাধ্যমে:- এমন কিছু ওয়েবসাইট রয়েছে যাদের সার্ভার থেকে কোন ফাইল আনলােভ করলে প্রতিটি ডাউনলােড এর জন্য অর্থ প্রদান করা হয়। ব্যাপারটা আরেকটু বুঝিয়ে বলি মনে করুন abc.com নামে একটি ফাইল শেয়ারিং সাইট রয়েছে। এখন আপনি ahc.com এ রেজিস্ট্রেশন করে তাতে একটি ফাইল আপলাে করে রাখলেন। এরপর এই ফাইলটি হত্যার ডাউনলােড হবে আপনি প্রতিবারই ডাউনশাে এর জনা নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পাবেন।

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটপ্লেস সমূহ

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর জন্য জনপ্রিয় কিছু ওয়েব সাইট এর লিস্ট নিচে দেওয়া হলো:-

পণ্য বিক্রির মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

www.amazon.com এ সাইটটিতে রয়েছে আয়ের মার্কেটিং-এর জন্য বিভিন্ন ধরনের পণ্য পাবেন যেগুলাে ১০% পর্যন্ত কমিশন পেতে পারেন। বিশাল যােগ। এখানে আপনি অ্যাফিলিয়েট 1 জন্য আপনি পণ্যটির মূল অনুযায়ী ৪% থেকে
www.clickbank.com এই গাহটি প্রােপ্ায প্রমােট করতে পারেন। এখানে প্রােডাক্ট এর জন্য বিখ্যাত। এই সাইট থেকে আপনি ডিজিটাল মা অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং এর মাধ্যমে ভাল আয় করতে পারেন।
www.clicksurc.com এই সাইট ঠির মাধ্যমে আপনি ভাল ইনকাম করতে পারেন। এই সাইটের কোন প্রােজাষ্ সেল করতে পারলে আপনার কমিশন হবে ২০০ লার থেকে ৩০০ লার। তবে এখানে সমস্যা হল একটা প্রাো একবারই সেল করতে পারবেন।
www.jvzoo.com এই সাইট এ অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য সব চেয়ে মজার বিষয় হল এখান থেকে কোন শ্রােড সেল হলে সেই কমিশন সাথে সাথে আপনার থার্ড ব্যাংক অ্যাকাউন্ট অর্থাৎ Paypal এ জমা হবে। www.ebay.com এ সাইটটি amazon এর মতােই একটি সাইট। এখানে আপনি প্রোডাক্ট প্রমােট – এর জন্য বিভিন্ন ধরনের পণ্য পাবেন যেগুলাে বিক্রির জন্য আপনি পণ্যটির মূলয অনুযায়ী অর্থ পাবেন।

রেজিস্ট্রেশন এর মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

www.payza.com এখানে প্রতিটি ইউজার রেজিস্ট্রেশন করানাের মাধ্যমে আপনি ০.৫ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ১০ জুগা পেতে পারেন।

www.bravenet.com এখানে আপনার লিংক ধরে কেউ সাইনআপ করে তাদের যে কোন একটি টুল ব্যাবহার সেই প্রতি ইউজার সাইনগ্রাপ এর জন্য দেয়া হবে ১ ডলার।

www. ika.com এই বিজ্ঞাপন প্রতিষ্ঠানের সাইটে আপনার লিংক থেকে বা ওয়েবের আয়ের ২৫ শতাংশ আপনিও পাবেন। সাইন। করলে তার গ

এছারা প্রতিটি পি,টি,সি সাইট এফিলিয়েট মার্কেটিং-এর ব্যবস্থা থাকে। আপনার রেফারেল লিংক ব্যবহার করে। কেও যদি তাদের সাইটে রেজিস্ট্রেশন করে তাহলে তার প্রতিটি ক্লিকের জন্য আপনি নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ পাবেন।

ডাউনলোড এর মাধ্যমে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং

www.ziddu.com এ সাইটে আপনি পাবেন ০.০০১ জলার। আপনার এ ১০ উলার হলে আপনি সেই
অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন।

www.hotfile.com এ সাইটে আপনি পাবেন ০০০১ ডলার। আপনার একাউন্টে ১০ ডলার হলে আপনি সেই অর্থ উত্তোলন করতে পারবেন। তবে হটফাইলে যে সমস্যাটি তা হল ভাউনলােড কাউন্ট হয় শুধু ৪৮টি দেশ থেকে। তবে এ দেশগুলাের ট্রাফিক পেলে সাফল্য অনিবার্য।

কিভাবে অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করবেন?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করার জন্য আপনার চারটি বিষয় প্রয়োজন সেগুলাে হলঃ
1. Strategy
2. Time
3. Effort 
4. Money
এই চারটা বিধয় আপনার মাঝে থাকলে আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করতে পারেন। প্রথমত আপনাকে কাজের বিষয়ে কৌশলী হতে হবে। দিত্বীয়ত কাজ করার জন্য আপনার মথেট সময় থাকতে হবে কারণ এটি একটি দীর্ঘ সময় বিজনে তাই আপনাকে সময় ব্যয় করতেই হবে নতুবা আপনি সাকসেস হতে পারবেন না। তৃতীয়ত আপনার সাকসেস হওয়ার জন্য প্রচেষ্টা করতে হবে কারণ এটি একটি কল্পেটেটিভ বিজনেস। সব শেষে আপনার যেটা দরকার সেটি হল টাকা। এখানে আপনার বিভিন্ন কাজে টাকা ব্যয় করা লাগতে পারে আপনার বিজনেস সঠিক ভাবে চালানাের জন্য।

মার্কেটিং এর জন্য কি কি যোগ্যতা থাকতে হবে?

অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং শুরু করার জন্য আগনার খুব বেশি যোগ্যত্যর প্রয়ােজন নেই। আপনি যদি মনে করেন নিচের চারটি গুণই আপনার মধ্যে আছে তাহলেই কেবল আপনি অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং করার জন্য সমর্থ হবেন।
শুণ চারটি হলাে।
১. বিশ্বাস ২, ধৈর্যশীলতা
৩. সততা ৪. আত্মবিশ্বাস


Leave a Comment